রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০৪:৩৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম ::
সাংবাদিক পুত্র রাফি’র সুস্থ্যতার জন্য সকলের কাছে দোয়া কামনা সুনামগঞ্জ সদরে বিশ্ববিদ্যালয় নির্মাণের দাবিতে মানববন্ধন শীতকালীন সবজি হিসেবে শিমের চাষ শুরু করেছে কৃষকরা নোয়াখালী চাটখিলে ভূয়া সিআইডি কর্মকর্তা আটক ময়মনসিংহে ব্রহ্মপুত্র নদে পাওয়া গেল ডলফিন; কেটে চর্বি বিক্রি করল জেলেরা জলঢাকায় ইউএনও মাহবুব হাসানের পুজা মন্ডপ পরিদর্শন ও শুভেচ্ছা বিনিময় তাহিরপুরে SWF এর বাস্তবায়নে ওয়াস কমিটিদের দক্ষতা ট্রেনিং অনুষ্ঠিত নোয়াখালীর প্রবীণ সাংবাদিক আহসান উল্যা মাষ্টার চলে গেলেন না ফেরার দেশে চুয়াডাংগা জেলার খেজুরের গাছ ঝুড়াইয়ে ব্যস্ত গাছিরা আগাম ফুলকপি চাষে লাভবান ঠাকুরগাঁওয়ের কৃষক রাবি শিক্ষার্থী মুস্তাফিজের খুনিদের ধরতে ২৪ ঘণ্টার আল্টিমেটাম রাজধানীর সাভারে ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে রাবি ছাত্রের মৃত্যু ৮০বোতল ফেনসিডিলসহ আকন্দবাড়িয়ার সিহাব যশোরে ডিবির হাতে গ্রেফতার ব্যাপক জমে উঠেছে পুরাতন মোটরসাইকেলের হাট আলমডাঙ্গা অনুমোদনহীন ওষুধ বিক্রি করায় আনোয়ারায় ৩ ফার্মেসিকে জরিমানা
মোট আক্রান্ত

সুস্থ

মৃত্যু

  • জেলা সমূহের তথ্য
ন্যাশনাল কল সেন্টার ৩৩৩ | স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ | আইইডিসিআর ১০৬৫৫ | বিশেষজ্ঞ হেলথ লাইন ০৯৬১১৬৭৭৭৭৭ | সূত্র - আইইডিসিআর | স্পন্সর - একতা হোস্ট

ডিসিদের রিটার্নিং অফিসার করা অসাংবিধানিক: বাংলাদেশ কংগ্রেসের মানববন্ধনে বক্তরা

আবু সায়েম মোহাম্মদ সা'-আদাত উল করীম
  • প্রকাশিত সময় : শুক্রবার, ২৫ সেপ্টেম্বর, ২০২০

জেলা প্রশাসকের পরিবর্তে জেলা নির্বাচন কর্মকর্তাকে রিটার্নিং অফিসার নিয়োগ করা, নির্বাচনের দিন দলীয় ক্যাম্প ও জনসমাগম নিষিদ্ধ করা এবং নির্ধারিত স্থান ছাড়া পোস্টার টানানো ও সভা বন্ধের দাবীতে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বক্তারা বলেছেন, দেশে সুষ্ঠু নির্বাচন ব্যবস্থা না থাকায় সর্বক্ষেত্রে দুর্নীতি, অনিয়ম ও অব্যবস্থাপনা ভর করছে। জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে বাংলাদেশ কংগ্রেসের উদ্যোগে আজ ২৫ সেপ্টেম্বর শুক্রবার সকাল ১০টায় উক্ত মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশ কংগ্রেসের চেয়ারমান এ্যাডঃ কাজী রেজাউল হোসেন-এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ সকল প্রকার নির্বাচনে নির্বাহী বিভাগের হস্তক্ষেপ বন্ধের আহবান জানান।

বক্তৃতা দানকালে বাংলাদেশ কংগ্রেসের চেয়ারমান এ্যাডঃ কাজী রেজাউল হোসেন বলেন, নির্বাচন কমিশন একটি স্বাধীন প্রতিষ্ঠান এবং তাদের মূল কাজ নির্বাহী বিভাগের সহায়তায় সকল প্রকার নির্বাচন পরিচালনা করা। কিন্তু জেলা প্রশাসকদেরকে নির্বাচন পরিচালনার দায়িত্ব দিয়ে তারা আত্মঘাতি কাজ করেন যাতে তাদের স্বাধীন স্বত্তা ক্ষুন্ন হয়। জেলা প্রশাসকরা নির্বাচন পরিচালনাকারী হতে পারেন না। কারণ সাংবিধানিক বাধা আছে। সংবিধানের ১২৬ অনুচ্ছেদে বলা হয়েছে, “নির্বাচন কমিশনের দায়িত্ব পালনে সহায়তা করা সকল নির্বাহী কর্তৃপক্ষের কর্তব্য হইবে”। জেলা প্রশাসকগণ প্রজাতন্ত্রের নির্বাহী বিভাগে কর্মরত আছেন। তাই তারা নিজেরা সরাসরি নির্বাচন পরিচালক হতে পারবেন না।

বাংলাদেশ কংগ্রেসের মহাসচিব এ্যাডঃ মোঃ ইয়ারুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত উক্ত মানববন্ধনে উপস্থিত নেতৃবৃন্দ বলেন, নির্বাচনী প্রচারে জনদূর্ভোগ ও কালো টাকার ব্যবহার বন্ধ করতে নির্বাচনী আচরণবিধি সংশোধন করতে হবে। অতিরিক্ত পোস্টার ব্যবহারে একদিকে যেমন কাগজের অপচয় হয়, অন্যদিকে তেমনি পরিবেশ নষ্ট হয়। কোন কোন প্রার্থী রাতারাতি পোস্টার দিয়ে সব জায়গা দখল করে ফেলে, যার ফলে সব প্রার্থীরা পোস্টার মারার সমান সুযোগ পান না। যত্রতত্র জনসভা ও মাইকের ব্যবহার অতিমাত্রায় শব্দ দূষণ ঘটায় যা শিক্ষার্থীসহ সব শ্রেণীর মানুষের জন্য ক্ষতিকর ও বিরক্তিকর।

স্বাস্থ্য বিধির আওতায় অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে বাংলাদেশ কংগ্রেসের ভাইস-চেয়ারম্যান এ্যাডঃ মোঃ শফিকুল ইসলাম, যুগ্ম মহাসচিব এ্যাডঃ মোঃ আব্দুল আওয়াল, কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক নাজমুল মোর্শেদ, দলের ন্যাশনাল সিনেটের সদস্য নাজমুল হক বাদল, স্বাস্থ বিষয়ক সম্পাদক এ্যাডঃ দেবদাস সরকার, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক মোস্তফা আনোয়ার রিপন, ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনে অংশ গ্রহনকারী বাংলাদেশ কংগ্রেসের প্রার্থী মোঃ আয়াতুল্লাহ ওরফে আক্তারুজ্জামান, বাংলাদেশ নাগরিক জোট-বিএনজে’র চেয়ারম্যান এইচ. সিদ্দিকুর রহমান খোরশেদ,গণ রাজনৈতিক জোট-গর্জো’র সভাপ্রধান সিয়দ মইনুজ্জামান লিটু প্রমুখ বক্তৃতা করেন।

নেতৃবৃন্দ মনে করেন, দেশে সুষ্ঠু নির্বাচন ব্যবস্থা না থাকায় সৎ ও যোগ্য জনপ্রতিনিধি তৈরী হচ্ছে না। পাপলুর মতো কালো টাকার মালিকরা টাকার বিনিময়ে জনপ্রতিনিধি বনে যাচ্ছে। ফলে সুশাসন প্রতিষ্ঠিত হচ্ছে না। অসৎ ও দুর্নীতিবাজ জনপ্রতিনিধিদের মাধ্যমে দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তা-কর্মচারীরা প্রশাসনে জেঁকে বসে বেপরোয়া ও স্বেচ্ছাচারী আচরণ করছে। ক্রস ফায়ার, খুন, গুম, ধর্ষণ, টাকা পাচারসহ সব ধরণের অপরাধ ও দুর্নীতি সংঘটিত হচ্ছে এসব জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের ছত্রছায়ায়। যেনতেন প্রকারে নির্বাচিত হয়েই এসব জনবিচ্ছিন্ন জনপ্রতিনিধিরা নিজেদের আখের গোঁজাতে ব্যস্ত হয়ে ওঠে। তাদের হাতে উপেক্ষিত থাকে দেশ ও দেশের জনগণ। দুর্যোগের সময় ত্রাণ চুরির মহোৎসবে নামে তারা। দেশকে ভয়াবহ বিপর্যায়ের হাত থেকে বাঁচাতে হলে দরকার একটি সুষ্ঠু ও গণতান্ত্রিক নির্বাচন ব্যবস্থা। নির্বাচনকে প্রশাসনের প্রভাবমুক্ত করতে না পারলে সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ নির্বাচন আদৌ সম্ভব নয়। এজন্য নির্বাচন ব্যবস্থার সংষ্কার জরুরী। নির্বাচন ব্যবস্থার সংষ্কারে সর্বদলীয় কমিটি গঠনের আহবান জানান বক্তারা।

শেয়ার করুন...

এই ক্যাটাগরীর অন্যান্য সংবাদ...

আমাদের সাথে ফেইসবুকে সংযুক্ত থাকুন

বিজ্ঞাপন

cloudservicebd.com

বিজ্ঞাপন

ডেইলি সংবাদ প্রতিদিন মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০২০
Design & Developed BY Cloud Service BD
themesba-lates1749691102