শুক্রবার, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ০২:২৪ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম ::
মাদক সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ থেকে আগামী প্রজম্ন কে রক্ষা করতে খেলা ধুলার কোন বিকল্প নেই ইসলামপুর জামে মসজিদ সংলগ্ন রাস্তা সংস্কারের কাজে শুভ উদ্ভোধন রাবি উপাচার্যের স্থাবর-অস্থাবর সম্পদের উৎস অনুসন্ধানের সুপারিশ ইউজিসি অসহায় কলেজ ছাত্রের চিকিৎসার দায়িত্ব নিলেন এমপি মুকুল নোয়াখালীর হাতিয়ায় গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ নোয়াখালীতে অস্ত্রেরমুখে প্রবাসীর স্ত্রী ধর্ষণ, যুবলীগ নেতা বহিষ্কার, অস্ত্র ও গুলি উদ্ধার দর্শনার জয়নগর চেকপোস্ট সরেজমিনে পরিদর্শন করলেন ভারতের নয়াদিল্লীতে নিযুক্ত বাংলাদেশি হাই কমিশনার ক্যাম্পাসের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের আর্থিক সহায়তা প্রদান হেফাজতে মৃত্যু নিবারণ আইন নিয়ে মানুষের অজ্ঞতা দূর করতে হবে আনোয়ারায় তৈলারদ্বীপে ২ বসতবাড়ি পুড়ে ছাই নোয়াখালী সেনবাগে গৃহবধূকে ধর্ষণের অভিযোগে আটক -৩ নাইক্ষ্যংছড়ির বাইশফাড়ি সীমান্তে বিজিবির সঙ্গে বন্দুক যুদ্ধে ১ রোহিঙ্গা মাদক পাচারকারী নিহত শৈলকুপায় বিনামূল্যে চক্ষু চিকিৎসা ক্যাম্প সরাইল উপ-নির্বাচনে জাল ভোট দেওয়ার চেস্টায় ৩ তরুনীর কারাদণ্ড নোয়াখালী সৎ মা-ছেলের দ্বন্দ্বে ঘরে আগুন, মায়ের মৃত্যু
মোট আক্রান্ত

সুস্থ

মৃত্যু

  • জেলা সমূহের তথ্য
ন্যাশনাল কল সেন্টার ৩৩৩ | স্বাস্থ্য বাতায়ন ১৬২৬৩ | আইইডিসিআর ১০৬৫৫ | বিশেষজ্ঞ হেলথ লাইন ০৯৬১১৬৭৭৭৭৭ | সূত্র - আইইডিসিআর | স্পন্সর - একতা হোস্ট

আখাউড়া পৌর শহরের সড়ক বাজার তীব্র যানজটে নাকালঅতিষ্ঠ মানুষকে আশার কথা শোনালেন পৌর মেয়র

মোঃ আলী হোসেন ভূঁইয়া
  • প্রকাশিত সময় : সোমবার, ৫ অক্টোবর, ২০২০

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া পৌর শহরের সড়ক বাজারে তীব্র যানজটে অতিষ্ঠ মানুষ। শহরের ফায়ার সার্ভিসের সামনে থেকে সড়ক বাজার মসজিদের মোড়, থানার সামনে থেকে ঢাকা হোটেল মোড় পর্যন্ত যানজটে চরম ভোগান্তিতে আছে সাধারণ মানুষ। কখনো কখনো যানজট এত তীব্র হয় যে ৫ মিনিটের এই রাস্তা পার হতে বসে থাকতে হয় ৩০-৪০ মিনিট আর এতে করে বেশি ভোগান্তিতে পড়তে হয় হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া রোগী ও ট্রেন ধরতে যাওয়া যাত্রীদের।

আখাউড়ায় গুরুত্বপূর্ণ রেলওয়ে জংশন স্টেশনের যাত্রীদের চলাচলের জন্য এই রাস্তাটি ব্যবহার করতে হয়। দেখা যায় যে অনেক সময় এই যানজটের কবলে পড়ে বহু যাত্রী ট্রেইন মিস করে।ছোট কুড়িপাইকা গ্রামের আকরাম হোসেন বলেন ট্রেইন ছাড়ার নির্ধারিত সময়ের ৩০ মিনিট আগে এসেও এই যানজটের কবলে পড়ে ট্রেইন মিস করেছি।
সিঙ্গারবিল থেকে রোগী নিয়ে আখাউড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আসা কবির মিয়া ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন ফায়ার সার্ভিসের সামনে থেকে সড়ক বাজার আসতে অপেক্ষা করতে হয়েছে ৪০ মিনিট, আমাদের রোগী বিষ খেয়েছে যত দ্রত সম্বব তাকে হাসপাতালে নেওয়া জরুরি কিন্ত এই রাস্তায় এত যানজট হাসপাতালে পৌঁছাতে আরো কত সময় লাগে আল্লাহ ভালো জানে।পৌরসভার সামনে সিএনজি গুলি এলোপাথাড়ি রাখার কারনে এই যানজটের সৃষ্টি বলে তিনি মনে করেন।
সরজমিনে দেখা যায় শহরে যে পরিমাণ সিএনজি অটোরিক্সা বৃদ্ধি পেয়েছে সে তুলনায় সরু রাস্তা তার উপর মায়াবী সিনেমা হল মোড় থেকে রেলওয়ে স্টেশন পর্যন্ত ফুটপাত থাকে হকারদের দখলে আখাউড়া পোস্ট অফিসের সামনে থেকে খাদেম ফার্মেসির সামনে সিএনজি আর অটোরিক্সা যত্রতত্র পার্কিং বিশেষ করে সড়ক বাজার থেকে খরমপুর রোডে চলাচলকারী অটো গুলি সড়ক বাজার মসজিদের সামনে যাত্রী নামিয়ে এখানেই রাস্তার উপর দাঁড়িয়ে থেকে আবার যাত্রী তুলেন, যার কারনে শহরের এই গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্টে যানজট তীব্র আকার ধারন করে।
যানজট নিরশন নিয়ে কথা হয় আখাউড়া পৌর মেয়র মোঃ তাকজিল খলিফা কাজল এর সাথে মেয়র দেশ প্রতিনিধিকে জানান পৌর শহরের যানজট নিয়ন্ত্রন নিয়ে আমরা নতুন পরিকল্পনা গ্রহন করেছি ইতিমধ্যে আমি গত ২৯-৯-২০ তারিখে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পুলিশ সুপারের সাথে কথা বলেছি আমি উনার কাছে আমার পৌর শহরের জন্য এক সেট ট্রাফিক পুলিশ ছেয়েছি তিনি আমাকে বলেছে যে আমাদের পৌর শহরের জন্য একসেট ট্রাফিক পুলিশ দিবে।
আমাদের শহর যখন সৃষ্টি হয় তখন জনসংখ্যা ছিলো ২০-২৫ হাজার আর বর্তমানে জনসংখ্যা ১ লক্ষ ৫০ হাজারের মতো, জনসংখ্যা বৃদ্ধির পাশা পাশি গাড়ীর সংখ্যাও বৃদ্ধি পেয়েছে, আমাদের রাস্তা কিন্ত বৃদ্ধি পায়নি তারপরও আমরা আমাদের সীমিত সম্পদ ব্যবহার করে যানজট নিয়ন্ত্রনের পরিকল্পনা হাতে নিয়েছি আমরা কালন্দী খালের উপর বক্স কালবার্ড করে নতুন একটি রাস্তা করবো তার পাশাপাশি ফায়ার সার্ভিসের এখান থেকে পশ্চিম দিকে একটি রাস্তা রেলওয়ে স্টেশনের সাথে যুক্ত করবো যাতে উত্তর দিক থেকে আসা গাড়ির গুলি সেই রাস্তা দিয়ে রেলওয়ে স্টেশনে যেতে পারে।
মায়াবী সিনেমা হলের সামনে থেকে মালদার পাড়ার ভিতর দিয়ে নতুন রাস্তার কাজ চলমান এই রাস্তাটির নির্মাণ কাজ শেষ হলে এখান দিয়ে কিছু গাড়ী চলাচল করতে পারবে,তাতে করে সড়ক বাজারের ভিতরে কিছু চাপ কম হবে।সর্ব শেষে আমরা আমাদের স্ট্যান্ড গুলি শহরের বাইরে স্থানান্তর করবো। উত্তর দিকের গাড়ী গুলির নির্ধারিত স্থান হরিজন পল্লির পাশে, মায়াবী সিনেমা হলের সামনে থেকে নারায়ণপুর বাইপাস মোড়ে স্থানান্তরের চিন্তা আছে আর দক্ষিন দিকে দক্ষিণ ইউনিয়ন পরিষদের যে যায়গা আছে সেখানে স্থানান্তর হবে।তাহলেই যানযট কিছুটা নিয়ন্ত্রন হবে বলে আমি আশা করি।মেয়র বলেন সর্বপরি আমার পৌর এলাকার সকল জনগনের সহযোগিতা লাগবে।

শেয়ার করুন...

এই ক্যাটাগরীর অন্যান্য সংবাদ...

আমাদের সাথে ফেইসবুকে সংযুক্ত থাকুন

বিজ্ঞাপন

cloudservicebd.com

বিজ্ঞাপন

ডেইলি সংবাদ প্রতিদিন মিডিয়া গ্রুপ কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত। © ২০২০
Design & Developed BY Cloud Service BD
themesba-lates1749691102